• রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০২:০৯ অপরাহ্ন
  • ই-পেপার
শিরোনাম :
মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ কর্মচারী সংঘের সাবেক সাধারণ সম্পাদক পল্টুর দূর্নীতি-অনিয়ম তদন্তের নামে সময়ক্ষেপণ, ক্ষুদ্ধ বন্দরের কর্মচারীরা বর্ণাঢ্য আয়োজনে যবিপ্রবিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন রানীশংকৈলে তথ্য অধিকার দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা মোংলায় প্রধানমন্ত্রীর ৭৪ তম জন্মদিন পালন যশোরের শার্শার ডিহিতে গণহারে টিকা নিতে মানুষের উপচে পড়া ভিড় ছুরিকাঘাতের শিকার (এএসআই) পেয়ারুল ইসলাম মারা গেছেন স্বার্থপর সাধন কুমার দাস ঝিনাইদহের মোবারকগঞ্জ চিনি কল রক্ষায় প্রশংসনীয় উদ্যোগ নড়াইলে মহিলার যাবজ্জীবন কারাদন্ড!! নড়াইলে মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায়  এসএসসি পরীক্ষার্থী নিহত
নোটিশ :
সাপ্তাহিক রেড নিউজ এ আপনাকে স্বাগতম! এখন থেকে আপনারা প্রিন্ট ভার্সনের পাশাপাশি ২৪ ঘন্টা অনলাইনে খবরা-খবর দেখতে পাবেন। আমাদের সাথেই থাকুন, ধন্যবাদ। খালি থাকা সাপেক্ষে সাংবাদিক নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগ - ০১৭১১-০৫৯৯৮৭

কেবল একমুঠো ভাতের জন্য আকুতি তার

রিপোর্টারঃ / ৩১ বার পড়া হয়েছে
আপডেটের সময়ঃ শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১

খন্দকার তরিকুল ইসলাম, যশোরঃএকজন মানসিক ভারসাম্যহীন ভবঘুরে মানুষ। যশোরে রাস্তার ঘুরে ঘুরে কাটে দিন, জোটে মানুষের দেয়া খাবার। এভাবেই চলে নাম না জানা এই মানুষটির জীবন। তবে বর্তমান করোনা পরিস্থিতির প্রভাব পড়েছে তার জীবনেও। লকডাউনে সব বন্ধ। তাই ভাগ্যে জোটেনি এক মুঠো ভাত। ৬-৭ দিন ভাত খাওয়া হয়নি।।
অনেকের কাছে ভাত খেতে চেয়েছেন কিন্তু ভাত জোটেনি। যার মনে মায়া জন্মেছে ৫-১০ টাকা হাতে ধরিয়ে দিয়ে গেছে। ভাতের খোঁজে ক্লান্ত শরীরে ঘুরতে ঘুরতে শুধু হতাশাই জন্মেছে।স্থানীয় বাজারে কেউ হয়তো তাকে বলে দিয়েছে, সোহাগ এর কাছে যা ভাত খেতে দেবে। ঘুরতে ঘুরতে ঠিকই সে আমার লোকেশনে চলে এসেছে। এসেই হাঁকডাক শুরু সোহাগ কই? সোহাগ কাছে গেলে ভাত পাব।
বিষয় হলো সোহাগ ভাইয়ের সাথে দেখা করতে পারলেই পেট ভরে ভাত খেতে পারবে। কত ‘ভরসা। হয়তো চাহিদাটা খুবই কম, তবে ভরসাটা অনেক বড়।
কারণ একজন মানসিক ভারসাম্যহীন ভবঘুরে মানুষের আমার কাছে আসা এক মুঠো ভাতের আকুলতা আমি দেখছি, চোখে মুখে ভরসা ছিল, নির্ভরতা ছিল।বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে গেটে ঠুকতেই বাধা পড়ল। চেঁচিয়ে বললো, শুধু একবার সোহাগকে ডাক, আমাকে ভাত খেতে দেবে, সোহাগ ভাত দেয়। মানুষ কতটুকু ক্ষুধা লাগলে একজনের উপরে ভরসা করে খুঁজতে খুঁজতে ঠিকানায় চলে আসে।
ভাত খাওয়ার পরে হাতে কিছু টাকা দিতে চাইলাম, টাকা নিল না, বললো টাকা লাগবে না, টাকা কোনো সমস্যা না, টাকা রাস্তায় পাওয়া যায়, শুধু ভাত পাওয়া যায় না। ভাত খেয়ে বললো, যাক আবারও এক মাস বেঁচে থাকা যাবে। কত অসহায় হলে একবার ভাত খেয়ে একমাস বাঁচার আকুতির স্বাভাবিকভাবে প্রকাশ করে!
আমাদের আশপাশে একই অবস্থায় শত মানুষ রয়েছে, ক্ষুধায় কষ্ট পাচ্ছে, আমার শুভাকাঙ্ক্ষীদের সবার কাছে অনুরোধ, যদি সম্ভব হয়ে আপনার সাধ্যমত এ সব মানুষকে সহযোগিতা করবেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে এ মানুষগুলো সত্যি কষ্টে রয়েছেন।বর্তমানে পরিস্থিতির জন্য বাসায় বা রুমে ঢুকতে দেয়া হয়নি। কারণ শত চেষ্টা করলেও ওকে বাসায় রাখা যাবে না, ও রাস্তায় চলতে শুরু করবে। আবারও এক মুঠো ভাতের ক্ষুধা নিয়ে, কোনো এক মানুষের বাসার গেটে দাঁড়াবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ